Skip to content
Home » ইন্দুবালা ভাতের হোটেল PDF রিভিউ | কল্লোল লাহিড়ী | Read Online

ইন্দুবালা ভাতের হোটেল PDF রিভিউ | কল্লোল লাহিড়ী | Read Online

ইন্দুবালা ভাতের হোটেল রিভিউ pdf

বইঃ ইন্দুবালা ভাতের হোটেল
লেখকঃ কল্লোল লাহিড়ী

“এক দেশ থেকে অন্য দেশে যাওয়া মানুষের ভিড় বাড়ে।
পাসপোর্টে ছাপ পড়ে। বাক্স প্যাঁটরা নিয়ে ইমিগ্রেশন পার করে মানুষ। এক সময়ে যে দেশটা নিজের দেশ ছিল সেটারই বেড়া টপকায়। প্রত্যেক বছর বৃষ্টি আসে নিয়ম করে দু দেশেই। তবুও সীমান্তের দাগ মুছে যায় না সেই জলে।ওটা ইন্দুবালার দাদুর স্বপ্ন হয়েই থেকে যায়।”

খুলনার কলাপাতার মেয়ে ইন্দুবালাকে তার বাবা কলকাতার ছেনু মিত্তির লেনের এক মাতাল ছেলের সাথে বিবাহ দেয়। বিবাহের কিছু বছরের মধ্যেই তিন সন্তানকে রেখে ইন্দুবালার স্বামী মাস্টার রতনলাল মল্লিক মারা যায়।তারপর থেকে ইন্দুবালা তার সন্তানদেরকে লালন পালনের জন্য ছেনু মিত্তির লেনের সেই পুরোনো দুতলা বাড়িতে খোলেন ইন্দুবালা ভাতের হোটেল। যেখানে তার সহসঙ্গী ছিল অজ পাড়াগাঁ থেকে আসা ধনঞ্জয় ও মাছওয়ালী লছমী। কুমড়ো ফুলের বড়া, কুমড়োর ছক্কা, বিউলির ডাল, ছ্যাঁচড়া, মুড়িঘন্ট, আম তেল, মালপোয়া, কুচো চিংড়ির ঝোল, চিংড়ির হলুদ গালা ঝোল, চন্দ্রপুলি, কচু বাটা, শিমাইয়ের পায়েস সহ নানা দিনে নানা রকমের খাবার পাওয়া যেত ইন্দুবালার ভাতের হোটেলে।

আরও পড়ুনঃ আদর্শ হিন্দু হোটেল PDF রিভিউ | বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়

তিন সন্তানকে লালন পালন করার সাথে সাথে নিয়মতান্ত্রিকভাবে ইন্দুবালা তার ভাতের হোটেল চালিয়ে যেত।সন্তানেরা বড় হয়ে গেলে তাদেরকে আলাদা করে দেয় ইন্দুবালা; পড়ে থাকে তার ভাতের হোটেল নিয়ে। নিঃসঙ্গ ছেনু মিত্তির লেনের ভাতের হোটেলে রান্না করার সাথে সাথে ইন্দুবালা ভাবতে থাকতে তার খুলনার কলপোতার গ্রামের কথা, তার পরিবারের সাথে কাটানো সময়গুলোর কথা, তার জীবনের প্রথম প্রেম মনিরুলের কথা, মনিরুলকে না বলতে পারা ভালোবাসার কথা, মুক্তিযুদ্ধের সময় মনিরুলের মৃত্যুর কথা, খুলনা থেকে কলকাতায় আসার কথা, দেশভাগের কারণে খুলনায় না যেতে পারার মনোবাসনা, স্বামীর মৃত্যর পর তার জীবনসংগ্রামের কথা,তার হোটেলে গভীর রাতে খেতে আসা মানুষগুলোর কথা। তার জীবনসংসার গড়ে ওঠে এই ভাতের হোটেলকে কেন্দ্র করে। তার কাছে সবাইকে ঠিকমতো খাওয়ানোই তার দায়িত্ব। ইন্দুবালার জীবনের কত কত অপূর্ণতার মাঝেও তার পূর্ণতা “ইন্দুবালা ভাতের হোটেল”।

পাঠকদের জন্য সাজেশান আপনি যে জনরার বই পড়তেই স্বাচ্ছন্দবোধ করেন না কেন, এই বইটি আপনাকে হতাশ করবেনা। বইটা শুধু খাবার সম্পর্কিত ভেবে ভুল না করে পড়া শুরু করে দিন।

লেখক পরিচিতিঃ

কল্লোহ লাহিড়ী একজন লেখক, তথ্যচিত্র নির্মাতা, ফিল্ম, টেলিভিশন ধারাবাহিক ও ওয়েব সিরিজের চিত্রনাট্য রচয়িতা। সিনেমা/চলচ্চিত্র নিয়ে থাকলেও তাঁর লেখা ইন্দুবালার ভাতের হোটেল এবং বাবার ইয়াশিকা ক্যামেরা উপন্যাস দুটি খুবই জনপ্রিয় ।

রিভিউ করেছেনঃ Munzeera Eshita

আরও পড়ুনঃ আরণ্যক PDF | উপন্যাসের বিষয়বস্তু | রিভিউ | বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়

Tags:
x
error: Content is protected !!