Skip to content
Home » আট কুঠুরি নয় দরজা বই রিভিউ PDF | সমরেশ মজুমদার উপন্যাস

আট কুঠুরি নয় দরজা বই রিভিউ PDF | সমরেশ মজুমদার উপন্যাস

আট কুঠুরি নয় দরজা pdf রিভিউ সমরেশ মজুমদার

বইঃ আট কুঠুরি নয় দরজা
লেখকঃ সমরেশ মজুমদার

“আট কুঠুরি নয় দরজা” সমরেশ মজুমদার রচিত কৌতুহলৌদ্দীপক রাজনৈতিক থ্রিলার। রাজনৈতিক থ্রিলারের পাশাপাশি সায়েন্স ফিকশনেরও কিছুটা প্রভাব রয়েছে যারই ফলশ্রুতিতে লেখক উপন্যাসের কাহিনীকে ভিন্ন এক ধারায় প্রভাবিত করেছে যা উপন্যাসের কাহিনীকে রহস্যময় করে তুলেছে পাশাপাশি পাঠককে কাহিনীর প্রতি আকর্ষণ বাড়াতে আগ্রহী করেছে।

উপন্যাসের পটভূমি গড়ে উঠেছে ভারতবর্ষের কাছাকাছি এক পাহাড়ি রাজ্যে। যেখানে একনায়কতন্ত্রী শাসনব্যবস্থাধীন রাজ্যের স্বৈরাচারী শাসকের বিরুদ্ধে আকাশলাল নামক নেতার নেতৃত্বে এক বিপ্লবী সংগঠন গড়ে ওঠে। আকাশলালের প্রধান সহযোগী ডেভিড, হায়দার, ত্রিভুবন হলেও রাজ্যের নির্যাতিত নিপীড়িত সকল মানুষই পরোক্ষভাবে আকাশলালের সহযোগী। যার কারণে রাজ্যের মিনিস্টার ও বোর্ডের লোভনীয় দশ লক্ষ টাকার বিনিময়েও কেউ আকাশলালের সাথে বিশ্বাসঘাতকতা করে তাকে পুলিশ কমিশনারের হাতে তুলে দিতে চাইনি বরং যে যেভাবে পারে তাকে সাহায্য করে গেছে।

গল্পের বাঁকে বাঁকে রাজনৈতিক চাল পাশাপাশি পুলিশ কমিশনার ভার্গিস আর বিপ্লবী নেতা আকাশলালের দুর্দান্ত লড়াইয়ের কাহিনী উপন্যাসটিকে রাজনৈতিক থ্রিলারে পরিণত করেছে। লেখক গল্পের নারী চরিত্রগুলোকে অসম্ভব ব্যক্তিত্বসম্পন্ন হিসেবে তুলে ধরেছে বিশেষ করে ম্যাডাম বলে সম্বোধিত নারী চরিত্র গল্পের আনাচে কানাচে এমনভাবে সংযোজিত করেছেন যার ব্যক্তিত্ব আকাশলালকেও ছাড়িয়ে গিয়েছে।

গল্পের শেষের দিকটা কিছুটা অগোছালো হলেও রাজনৈতিক হালচাল যে কতো জটিল এবং বিপ্লব বিষয়টা যে অত সহজ না তা এই গল্পের শিক্ষণীয় বিষয়। হয়তো ভাবছেন আকাশলাল কি পেরেছিল স্বেরাচারী শাসকদের উৎখাত করে একনায়কতন্ত্রী শাসনের অবসান ঘটাতে? এই প্রশ্নের উত্তর জানতে হলে অবশ্যই আপনাকে পড়তে হবে “আট কুঠুরি নয় দরজা”

আরও পড়ুনঃ বউ ঠাকুরানীর হাট রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর PDF | রিভিউ | Bou Thakuranir Haat

বইয়ের বিস্ময়সূচক কিছু কথাঃ

*যেসব পুরুষের মহিলাদের ওপর বিন্দুমাত্র আসক্তি থাকে না, তাদের মস্তিষ্ক কখনই প্রাপ্তবয়স্ক হয়না।

*আমি একজন মুসলমান অথবা খ্রিস্টান কিংবা হিন্দু হতে পারি জন্মসূত্রে, কিন্তু ঈশ্বরের কোনও জাত নেই। তিনি যদি সর্বশক্তিমান এবং পরম করুণাময় হন তা হলে তাকে কোনও বাধনে বেঁধে রাখা যায় না।

*মানুষের শরীরের যেসব ধমনী দিয়ে রক্ত চলাচল হয় তা যোগ করলে পৃথিবীর যে কোনও রেলপথও অনেক ছোট হয়ে যাবে।

*রুপের সঙ্গে অহংঙ্কার না মিশলে মেয়েরা সত্যিকারের সুন্দরী হয় না

*পৃথিবীর যাবতীয় রহস্য এই আট কুঠুরি নয় দরজার কাছে হার মেনে যায়।সেই রহস্যকে ব্যবহার করার সাধ্য কারও নেই। কিন্তু তাকে নিয়ে একটু লুকোচুরি করার চেষ্টা করলে দোষ কি??

আরও পড়ুনঃ ৫টি সংক্ষিপ্ত বুক রিভিউ বাংলা | পিডিএফ বই ডাউনলোড ওয়েবসাইট

আট কুঠুরি নয় দরজার রহস্য উদঘাটনঃ

আট কুঠুরি নয় দরজা কোনখানে তালা নেই। আর সেই ঘর তিনতলা। আট কুঠুরি হল শরীরের আটটা গ্রন্থি। পিটুইটারি, থাইমাস, থাইরয়েড, প্যারাথাইরয়েড, অ্যালড্রিনাল, প্যারাটিড, প্যাংক্রিয়াস এবং টেসটিস অথবা ওভারিস। এই শরীরটা বেঁচে থাকে এই আটটি গ্রন্থির মধ্য দিয়ে হরমোন সিক্রিশনের জন্যে। আর এই আটটি গ্রন্থির সঙ্গে শরীরের নয়টি দ্বার সংযুক্ত। তিনতলা হলো মস্তিষ্ক, কোমর থেকে শরীরের উর্ধ্বভাগ এবং নিম্নভাগ। নাক, কান, চোখ, মুখ ইত্যাদি নটা দ্বার এই তিনতলায় ছড়িয়ে আবদ্ধ, যা স্নায়ুশক্তির দ্বারা নিয়ন্ত্রণ করা যায়। উপন্যাসের বিপ্লবী নেতা আকাশলালের শারীরিক অবস্থার বিবরণ দিতে গিয়েই লেখক “আট কুঠুরি নয় দরজা” ব্যবহার করেছে।

রিভিউ করেছেনঃ Munzeera Eshita

আরও পড়ুনঃ আমার জীবন চার্লি চ্যাপলিন জীবনী PDF | Charlie Chaplin Bangla

Tags:
x
error: Content is protected !!